ট্রেনের সময়সূচী

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২২, টিকিটের মূল্য, স্টপেজ স্টেশন

একতা এক্সপ্রেস একটি জনপ্রিয় আন্তঃনগর ট্রেন যা ঢাকা থেকে দিনাজপুর এবং দিনাজপুর থেকে ঢাকা রুটে নিয়মিত চলাচল করে। শুরুতে দিনাজপুর গন্তব্যস্থান হলেও এখন একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি পঞ্চগড় পর্যন্ত চলাচল করে। তাই নীলফামারী দিনাজপুর ঠাকুরগাঁও এবং পঞ্চগড়গামী যাত্রীরা একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট করে ঢাকা থেকে খুব সহজেই তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবেন। আপনি যদি একতা এক্সপ্রেস ট্রেন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান যেমন ট্রেনের ভাড়া সময়সূচী টিকিটের মূল্য বন্ধের দিন এবং স্টপেজ স্টেশনের তালিকা, তাহলে এই পোস্টটি আপনাকে সকল তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করবে। ট্রেনে ভ্রমণ সবসময় আনন্দদায়ক হয়।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ট্রেন ভ্রমণ আনন্দর পাশাপাশি সাশ্রয়ীও বটে। বাংলাদেশের জনপ্রিয় ভ্রমণ মাধ্যম হচ্ছে ট্রেন এবং বাস। ঢাকা থেকে দিনাজপুর ঠাকুরগাঁও পঞ্চগড় গামী বাসের ভাড়া যেখানে ৮০০ থেকে ২০০০ পর্যন্ত সেখানে ট্রেনের ভাড়া মাত্র ৩৬০ থেকে ১২৮৫ টাকা। সুতরাং একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জেনে নিন এবং আপনার ভ্রমণকে আনন্দদায়ক ও নিরাপদ করুন। একতা

এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২২

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজধানী ঢাকা কমলাপুর স্টেশন থেকে স্যারে এবং সর্বশেষ স্টেশন হচ্ছে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম স্টেশন পঞ্চগড়। এটি পুনরায় পঞ্চগড় স্টেশন থেকে সেরে রাজধানী কমলাপুর স্টেশন পর্যন্ত ভ্রমণ করে। সুতরাং আপনি চাইলে ঢাকা থেকে পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ দিনাজপুর কিংবা পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁ দিনাজপুর থেকে ঢাকা ভ্রমণের জন্য বেছে নিতে পারেন একতা এক্সপ্রেস ট্রেন টিকেট। তাই এইচএমটির ঢাকা থেকে দিনাজপুর ঠাকুরগাঁও পঞ্চগড় এবং পঞ্চগড় থেকে ঢাকা গামী ট্রেনের সময়সূচী উল্লেখ করা হলো।

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিটের মূল্য

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে প্রায় চার ধরনের আসন আছে যা সর্বনিম্ন থেকে সর্বোচ্চ পর্যন্ত। সর্বনিম্ন শোভন শ্রেণীতে ৩৬০ টাকা এবং সর্বোচ্চ এসি বার্থডে ১২৮৫ টাকা প্রতি টিকিট। এছাড়াও শোভন চেয়ারের টিকিটের মূল্য ৪৬০ টাকা এবং স্নিগ্ধা বা এসি সিটের মূল্য ৮৫৫ টাকা। উল্লেখ্য যে শোভন এবং শোভন চেয়ার ব্যতীত অন্যান্য সকল টিকিটের মূল্যের উপর ১৫ পার্সেন্ট ভ্যাট প্রযোজ্য।

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ স্টেশন

এতক্ষণ আমরা কথা বললাম একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী এবং ভাড়া নিয়ে। এবারে আসবো একতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি কোন কোন স্টেশনে বিরতি দেয়। এমন অনেক যাত্রী আছে যারা ট্রেনের শুরুর স্টেশনে ছাড়াও অন্যান্য স্টেশন থেকে টিকিট সংগ্রহ করে এবং ট্রেনে উঠে থাকে। তাই শুরুতেই আপনার জেনে নেওয়া দরকার এই ট্রেনটি কোন কোন স্টেশনে ব্রেক দেয়। আপনি যে স্টেশনে নামার কথা চিন্তা করছেন সে স্টেশনে যদি ট্রেনটি না থামে তাহলে তার আগের কিংবা পরের কোন স্টেশনে আপনি নামতে পারবেন সেটি আগে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার জন্য ট্রেনটির স্টপেজ স্টেশন গুলো জেনে নেয়া দরকার। নিচের টেবিলে আমরা স্টেশনে নাম উল্লেখসহ ঢাকা থেকে ছাড়া ট্রেনটির কোন স্টেশনে কোন সময় থামে এবং দিনাজপুর থেকে ছাড়া ট্রেনটি কোন স্টেশনে কোন সময় থামে তা বিস্তারিত উল্লেখ করলাম। আশা করছি আপনি খুব সহজেই একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ স্টেশন এবং সময় সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন।

একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের বন্ধের দিন

আমরা আপনাকে অত্যন্ত আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের কোন সাপ্তাহিক ছুটি নেই। এই ট্রেনটি সপ্তাহের সাত দিনে চলাচল করে ঢাকা থেকে পঞ্চগড় এবং পঞ্চগড় থেকে ঢাকা। সুতরাং আপনি যেকোনো দিনের টিকিট সংগ্রহ করে ভ্রমণ করতে পারেন অনায়াসে একতা এক্সপ্রেস ট্রেনে।

Ratul

আমি রাতুল, এটা আমার ডাক নাম। এই নামে আমার এলাকার সবাই আমাকে চিনবে তবে বাইরের কেউ হয়তো চিনবে না। আমি বিশ্বাস করি সফলতা ভাগ্য এবং পরিশ্রমের দ্বারা নির্ধারিত। এই ব্লগটি আমি সখ করে তৈরি করেছি, এবং এটিই আমার ১ম ব্লগ। আশা করি আপনাদের বিভিন্ন তথ্য দিয়ে উপকৃত করতে পারবো। ধন্যবাদ সবাইকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.