স্বাস্থ্য

গর্ভবতী মায়ের সহবাস করার নিয়ম

গর্ভবতী “মা “হচ্ছে একজন সন্তান সম্ভাবনা। তার শরীরের ভিতরে বড় হতে থাকে ধীরে ধীরে আরেকটি মানুষ অর্থাৎ তার সন্তান। এক্ষেত্রে মা চাইলেই তার স্বামীর সাথে সহবাস করতে পারে না। মায়ের লক্ষ্য রাখতে হবে তার গর্ভের সন্তানের প্রতি। গর্ভবতী মা যদি সুস্থ থাকে অর্থাৎ ডাক্তারের পরামর্শে যদি সেসুস্থ থাকে অর্থাৎ ডাক্তারের পরামর্শে স্বাভাবিক থাকে কোনো ঝুঁকি নেই তবে সে ক্ষেত্রে সহবাস করতে পারে তবে হ্যাঁ গর্ভবতী মায়ের ইচ্ছা সম্মতি থাকতে হবে। অবশ্যই সে গর্ভবতী মাকে কোন ধরনের জোর বা ইচ্ছার বাইরে গিয়ে মায়ের উপর প্রেসার দিয়ে স্বামীকে সহবাস করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

এবার বলতে চাচ্ছি গর্ভবতী মায়ের উদ্দেশ্যে সহবাস কতটা নিরাপদ বা ঝুঁকিপূর্ণ:

গর্ভবতী মা হচ্ছে একজন স্বাভাবিক মানুষ নয় অর্থাৎ সে একটা সন্তানসম্ভাবনা মানুষ ।তার গর্ভে ভিতর বেড়ে উঠছে সুস্থ সুন্দর ছোট্ট একটা ফুটফুটে বাচ্চা যা পৃথিবীর বুকে ভূমিষ্ঠ হবার জন্য একটু একটু করে মায়ের গর্ভে বড় হচ্ছে। গর্ভবতী মায়ের ভাবতে হবে গর্ভে থাকা লালিত সন্তানের ভালো বা খারাপ এর কথা।গর্ভবতী মায়ের তার সহবাসের সময় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে তার গর্ভের সন্তানের উপর কোন ভাবে যেন তলপেটে চাপ না লাগে অতিরিক্ত আকারে। গর্ভবতী মায়ের সতর্কতার সহিত সময় নিয়ে ধীরে ধীরে সহবাস করতে হবে এবং সহজ করতে হবে এবং তাড়াহুড়ার শহীদ বা ব্যস্ততার শহীদ যদি গর্ভবতী মা সহবাস করে এতে করে গর্ভের সন্তানের ঝুঁকির আশঙ্কা থাকে।

গর্ভবতী মায়ের সহবাসের জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ এমন হচ্ছে তা আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে নিম্নবর্ণিত করা হলো:

গর্ভবতী মায়ের প্রথম তিন মাস সহবাস থেকে বিরত থাকা প্রয়োজনীয়। কারণ গর্ভের ভিতরে থাকা সন্তানটি প্রথম তিন মাস ঝুঁকির ভিতরে থাকে। কোন ধরনের তলপেটে চাপ ভারি কাজ এগুলোর ফলে বাচ্চাটি গর্ভপাত হবার সম্ভাবনা থাকে।চিকিৎসকের পরামর্শে থাকে যে প্রথম তিন মাস বাচ্চাদের গর্ভের ভিতর হার্টবিট হবার পূর্বে সতর্কতার বিশেষভাবে প্রয়োজন অনেক সময় চিকিৎসক মায়ের শরীরের অবস্থা খারাপ থাকলে গর্ভবতী মায়ের সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে বলে । গর্ভবতী মা কে নড়াচড়া করতে নিষিদ্ধ করে প্রয়োজনে ব্যতীত।

সর্বোপরি পরিশেষ বলতে চাচ্ছি যে এতক্ষন আমাদের সাথে থেকে পোস্টটি পড়েছেন এজন্য আন্তরিকভাবে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন আপনাদের কাছে আশা করছি আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি একজন গর্ভবতী মায়ের এর সহবাসের করার সুবিধা অসুবিধাও ঝুঁকি নিয়মাবলী এগুলো আপনারা আপনাদের জীবনে ব্যবহার করে উপকৃত হবেন এবং আমরা আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.