উক্তি

সেরা ইসলামিক উক্তি

আসসালামু আলাইকুম আপনারা সবাই কেমন আছেন। আশা করছি ,আল্লাহর অশেষ রহমতে ভালো আছেন। প্রিয় ভিউয়ার্স আপনাদেরকে আমাদের পেজে স্বাগতম। আজ আমরা আপনাদের মাঝে নিয়ে হাজির হয়েছি সেরা ইসলামিক উক্তি এই পোস্ট সম্পর্কে। আপনারা অনেকে ইসলামিক এর বিভিন্ন উক্তিগুলো খুঁজতে থাকেন। আর তাই আপনাদের জন্যই আমাদের এই আয়োজন। জীবনে চলার পথ খুবই সীমিত। কখন আল্লাহপাক ডাক দিবেন কেউ এটা  জানেন না। এই অল্প সময়ে আমাদের সামনে অনেক বাধা-বিপত্তি আসবে। আর সেই বাধা-বিপত্তিকে মোকাবেলা করেই সামনের দিকে এগিয়ে চলতে হবে।তাই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ইসলামিক ব্যক্তিগণ সমাজের দিক লক্ষ্য করে কিছু বাণী বা উক্তি প্রদান করে গিয়েছেন।

আর আমরা সেসব কথার প্রতিপালক নিজেরাই চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছি। অনেকে কষ্ট পেলে একটুতেই মরে যেতে চায় ।আল্লাহকে বলে আমাকে মরণ দেন, বিভিন্ন ধরনের কথা।আরে মরণ কি এতটাই সহজ আর জীবন কি এখানেই শেষ আল্লাহ তায়ালা আমাদের সৃষ্টি করেছেন। আর তিনি একদিন আমাদেরকে ডাক দিবেন তার কাছে।  জীবনে কষ্ট  এগুলোকে উপেক্ষা করে জীবনে চলতে হবে।আজ আমরা বিপদে পড়ে মরতে যাচ্ছি, পরকালের জন্য কি এমন নিয়ে যাচ্ছি। যে আল্লাহ তাআলার কাছে গিয়ে বলব যে আমি নিয়ে আসছি এত আমল। এসব কথা একবারও চিন্তা না করে কষ্টে দুঃখ হলে মরতে চাই। আল্লাহ তা’আলা আমাদের দুনিয়ার জীবনে পাঠিয়েছেন তার কাজ করতে। কিন্তু আমরা তার কাজ না করে শয়তানের দেখানো পথে বেশি চলে থাকি আমরা চেষ্টা করছি ইসলামের সেরা উক্তি গুলো তুলে ধরার জন্য তবে চলুন কথা না বলে কাজে যায় আর দেরি নয় আমাদের সাথেই থাকুন।

সেরা ইসলামিক উক্তি প্রদান করা হলো:

১/ পাপ ক্ষুদ্র তা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করতে হবে । আর পুণ্য ক্ষুদ্র তা আমল করে নিজের আয়ত্তে আনতে হবে।
(ইমাম গাজ্জালী)

২/ আল্লাহতালার ভয়ে যদি তুমি খারাপ কাজ ছেড়ে দাও তবে আল্লাহ তা’আলা তোমাকে উত্তম কিছু দান করবে।
(হযরত মুহাম্মদ সাঃ)

৩/ পাপ লুকানোর চেষ্টা করে কেউ কোনদিন সফল হতে পারেনা।পাপের কথা স্বীকার করে, যদি কেউ পাপ ত্যাগ করার চেষ্টা করে তবেই সে সফলতা অর্জন করতে পারে (হযরত আলী রাঃ)

৪/ যা অসৎ তো সে কথা কখনো মুখে এনো না। তবে তোমার সত্য কথা ও লোকে অনেক সময় মিথ্যা বলে গণ্য করবে। (হযরত আলী রাঃ)

৪/ স্বাস্থ্যের থেকে বড় সম্পদ আর অল্পতে তুষ্টি থাকা এর থেকে বড় সুখ আর কিছুই হতে পারেনা।( হযরত আলী রাঃ)

৫/ আপনার দুর্বলতা কে শক্তিতে পরিণত করার ক্ষমতা শুধু মাত্র আল্লাহ পাকই রাখেন। তাই আল্লাহ তাআলার কাছে সাহায্যের জন্য।( ডঃ বিলাল ফিলিস্প)

৬/ যদি পৃথিবীর কেউ আপনাকে না বুঝে তবে মনে রাখবেন আপনার সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহতালা আপনাকে ঠিকই বুঝবে। (ডঃ বিলাল ফিলিস্প)

৭/ নিজেকে দুশ্চিন্তামুক্ত রাখতে জীবনের প্রতিটা কাজ আল্লাহর উপরে ভরসা করেন। কেননা আল্লাহ তাআলাই জানে আপনার জন্য জীবনে কোনটি কল্যাণ করা হবে আর কোনটি অকল্যাণকর হবে। (ডঃ বিলাল ফিলিস্প)

৮/ সন্ত্রাসবাদ কখনোই কোন ধর্মীয় অধিকার নয়। ইসলাম সবসময় সাধারণ মানুষ হত্যা করাকে ঘৃণা করে থাকে। তাই কেউ চাইলেই এসব হত্যা কান্ডকে ইসলামের অধীনে আনতে পারবে না। (জাকির নায়েক)

৯/ যে পাপ করল সে আল্লাহকে হারালো আর যে আল্লাহকে পাইল সে পাপকে হারালো। (রাহিমাতুল্লাহ )

১০/ কখনো কখনো আল্লাতালা আমাদেরকে কষ্ট ও ভোগান্তির ভিতরে রাখেন। আর পরীক্ষা করেন আমরা যেন আল্লাহকে বিপদে স্মরণ করি এবং ধৈর্য ধারণ করি।
(ডঃ বিলাল ফিলিস্প)

১১/ দুনিয়া অর্জন নয় ,দুনিয়ার প্রতি বিমুখো তাতেই রয়েছে দেহের ও মনের প্রশান্তি।( ওমর ইবনুল খাত্তাব)

১২/ সেই ব্যক্তি অভিশপ্ত যে মরে যায় ।কিন্তু তার খারাপ কাজগুলো দুনিয়ার বুকে থেকে যায়। আল্লাহ তাআলার কাছ থেকে সে ক্ষমা নিয়ে যেতে পারে না। (আবুবক্কার রাঃ)

১৩/ যখন তুমি দেখবে নামাজে তোমার মনকে স্থির করতে পারতেছে না। তাহলে বুঝবে তোমার ঈমানের দুর্বলতা আছে। সেই দুর্বলতা কাটানোর জন্য তোমার কঠোর পরিশ্রম করতে হবে। ঈমানকে শক্ত করার জন্য।
(আল মাকদিসি রহমাতুল্লাহ)

১৪/ যেখানে আল্লাহ পাক থাকতে আদেশ দিছেন সেখানে আপনার উপস্থিতি থাকবে ।আর যেখানে আল্লাহ পাক না থাকার জন্য নির্দেশ প্রদান করেছে সেখানে আপনার অনুপস্থিত থাকবেন। (আবু হাজিম)

১৫/ আল্লাহ তাআলা বলছেন নিশ্চয়ই আমি একজনের কাজ ছাড়া বসে থাকা কি পছন্দ করি না। যদি সে দুনিয়ার কোন কাজ করে থাকে তবে করুক। আর না করে থাকে আর আখিরাতেরও কোন কাজ না, করে বসে থাকে আমি ওটাকে অপছন্দ করি না। (আব্দুল্লাহ ইবনে মাসুদ)

১৬/ কেউ যদি আপনাকে কষ্ট দিয়ে অনেক দূরে চলে যায়। তাহলে আপনি মন খারাপ করবেন না। কারণ ওটা আল্লাহ পাক আপনার ভাগ্যে লিখেছিল ।আপনি আল্লাহর প্রতি ধৈর্য ধারণ করুন।(ডঃ বিলাল ফিলিস্প)

১৭/ মরীচিকা নিচে সব মায়া ।কেউ কখনো কাউকে মনে রাখে না ।মরে গেলে যখন কবরে চলে যায় দুই একদিন হয়তোবা মনে করে কান্না করে ।পরে ঠিক পৃথিবী পৃথিবীর মতোই চলতে থাকে ।যে যতই ভালোবাসুক সব ভালোবাসা ভুলে যায় তখনই।( ইমাম শাফি রহমাতুল্লাহ)

১৮/ গীবত করা আল্লাহপাক নিষেধ করে দিয়েছেন ।যে গীবত করল সে তার মৃত ভাইয়ের গোশত খেলো ।(হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু সালাম)

১৯/ ভালো কথা বল নতুবা প্রয়োজন না থাকলে চুপ থাকো ।খারাপ কথা বলে নিজের মুখে পাপই করো না। (হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু সালাম)

২০/ যদি আপনি ন্যায় বিচারের বিশ্বাসী হন তাহলে আপনাকে অবশ্যই আখেরাতের কথা বিশ্বাস করতে হবে। কেননা দুনিয়াটাই শুধু ন্যায় বিচারের কারখানা নয়।
(ওস্তাদ নোমান আলী খান)

সর্বশেষে বলতে চাচ্ছি যে, এতক্ষন আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য আপনাদেরকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। আপনাদের মূল্যবান সময় দিয়ে আমাদের সঙ্গে থাকে পোস্টটি সম্পূর্ন করার জন্য ধন্যবাদ।আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি ইসলামিক সেরা উক্তিগুলো। জানিনা আপনাদের কতটুকু ভালো লাগছে। তবে আশা রাখছি ,ভালো লাগছে আমাদের দেওয়া পোস্টটি।আর পোস্টটি পাঠ করে আপনারা উপকৃত হবেন নিজেরাও জানবেন এবং অন্যকে জানতে সাহায্য করবেন। তবে আজ আর  নয় ভাল থাকবেন ,সুস্থ থাকবেন ,আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.