স্বাস্থ্য

সিজারের পর মাসিক, জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল ও সহবাস সম্পর্কে বিস্তারিত

আসসালামুআলাইকুম প্রিয়, পাঠক-পাঠিকা আজ আমরা এসেছি আপনাদের কাছে সিজারের পর,মাসিক, জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল ও সহবাস সম্পর্কে কিছু তথ্য বলতে, সিজারিয়ান অর্থাৎ সিজার শব্দটির সঙ্গে আমরা সবাই পরিচিত, আমাদের সমাজে নরমাল ডেলিভারি অর্থাৎ সাধারণ ডেলিভারি এ কথা তেমন শোনাই যায়না, বেশি ভাগ মায়েরা সিজার পদ্ধতিকে বেছে নিয়েছে।

সিজার করার কতদিন পর একটি মা তার জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেতে পারবে । কবে থেকে স্বামীর সাথে সহবাস করতে পারবে এবং কবে থেকে তার মাসিক দেখাতে পাবে এ সম্পর্কে প্রশ্ন মায়ের মনে জেগে থাকে , এ বিষয়ে জানানোর জন্য নিম্নে বর্ণনা প্রদান করা হল:

সিজারের পর মাসিক সম্পর্কে কিছু তথ্য নিম্নে প্রদান করা হলো:

যেসব মায়েরা বাচ্চাকে বুকের দুধ পান করায় না অর্থাৎ এক্সকুলুসিভ সেই সব মায়ের এর ক্ষেত্রে সন্তান জন্মদানে ছয় থেকে আট সপ্তাহের ভিতরে পিরোড মাসিক বা ঋতুস্রাব দেখা যায়। আর যে সকল মায়েরা বাচ্চার জন্মদানের পর থেকেই শুধুই মায়ের বুকের দুধ পান করে সে ক্ষেত্রে দেখা যায় মায়ের পিরোড না হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

বাচ্চা যদি সম্পূর্ণ পুষ্টি মায়ের বুকের দুধের থেকে নিয়ে থাকে সেই ক্ষেত্রে মায়ের পিরিয়ড শুরু হতে অনেকটা দেরি হয়ে থাকে।আর যে সকল বাচ্চা মায়ের বুকের দুধের পাশাপাশি ফর্মুলা বাড়তি খাবার খেয়ে থাকে সে সকল মায়ের ক্ষেত্রে পিরিয়ড বা মাসিক খুব তাড়াতাড়ি দেখা দেয়। সন্তানের বুকের দুধ পান করার উপরে নির্ভর করে মায়ের শরীরে শারীরিক গঠন অবস্থা কেমন, এর উপর নির্ভর করে মায়ের পিরিয়ড হয়ে থাকে।

সিজারের পর জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল কবে থেকে খাওয়া যায় এ সম্পর্কে নিম্নে বর্ণিত করা হলো:

একটি মা যখন 9 মাস পর্যন্ত সন্তান গর্ভে রাখে তারপর যখন সন্তান পৃথিবীর বুকে ভূমিষ্ঠ হয়। তার 40 দিন পর্যন্ত মায়ের শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হতে থাকে। 40 দিন পর যখন মাসিক হবে তখন ঐ মাসিকের ২ দিন পর থেকে জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেতে পারবে সর্তকতা অবলম্বন এর জন্য মা।

মা তার বুকের দুধ শুকিয়ে না যায়, এজন্য যেন মিনিকন জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেয়ে থাকবে। ফেমিকন জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল খেলে মায়ের বুকের দুধ শুকিয়ে যায়। তাই সে ফেমিকন জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল কে বর্জন করবে। প্রতিদিন নিয়ম করে খাবে রাতে ঘুমানোর আগে খাওয়ার পরে একটি করে মিনিকন পিল খাবে ।এতে করে মায়ের দ্বিতীয়বার গর্ভবতী হওয়ার ঝুঁকি থাকে না।

সিজার এরপর কবে থেকে সহবাস করা যাবে নিম্নে তা বর্ণিত করা হলো:

মহিলাদের গর্ভাবস্থার পরে যৌনতা এবং গর্ভ অবস্থায় আগে যৌনতার সমান গুরুত্বপূর্ণ। সন্তান জন্মদানের পর মহিলাদের শরীরের নানান ধরনের পরিবর্তন দেখা যায়। যেমন যৌনশুকনো হয়ে যায় রক্তপাত ,ব্যথা, পরিস্থিতি অনেক চাপ যেন হয়ে ওঠে। মা সন্তান জন্মদানের পর পর সন্তানের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা শারীরিক যত্ন নেওয়ার জন্য অনেকটা ব্যস্ত হয়ে পড়ে। জন্যই অনেক ক্ষেত্রে মা-বাবা তাদের শারীরিক ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক স্থাপন করতে সঠিক সময় ঠিক করতে পারে না।

সন্তান জন্মদানের পর ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই ।সন্তান প্রসবের পর কিছু বিষয় জানা প্রয়োজনীয়, চিকিৎসকের পরামর্শ হচ্ছে সন্তান জন্ম থেকে তিন থেকে চার মাস পর সহবাস করা যাবে। মা সন্তান জন্মদানের পর স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে এক মাসের সময় লাগে। যৌন রক্তক্ষরণ পেরিনিয়াল টিয়ার মত সমস্যায় ভোগেন। এগুলো থেকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে একটি মাসের প্রয়োজন হয়।এছাড়াও সন্তান জন্মদানের এক সপ্তাহের মধ্যে সহবাস করলে জ্বরায়ুতে সংক্রামন বা রক্তক্ষরণ হতে পারে।

গবেষণায় দেখা গেছে ,সন্তান প্রসবের পর প্রায় 80 শতাংশ মহিলার যৌন সমস্যার মুখোমুখি হন। গর্ভাবস্থার পরে সন্তান স্তন্যপান করার কারণে যৌন শুকনো হয়ে যায় ব্যথা হয়। এছাড়া ও মনে রাখতে হবে , সন্তান জন্মের পর সহবাস করলে অবশ্যই গর্ব নির্ধারক ব্যবহার করা উচিত কারণ প্রথম সন্তান জন্ম দেওয়ার পর পুনরায় গর্ভবতী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে ।

পরিশেষে বলতে চাচ্ছি ,যে আপনারা আমাদের সাথে থাকার জন্য আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন রইল। আপনাদের উদ্দেশ্যে দেওয়া তথ্য বা টিপস গুলো আপনাদের উপকার হবে আর এগুলো আপনারা আপনাদের জীবনে ব্যবহার করবেন এবং অন্যকে জানাতে সাহায্য করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.